কাগজের 50 ভাঁজে পৃথিবী ও সূর্যের দূরত্ব

গতকাল আমাদের facebook পেজে ওপরের পোস্টটি দেওয়ায় অনেকে প্রশ্ন করেছিলেন যে কীভাবে একটি কাগজকে 50 বার ভাঁজ করলে এর বেধ সূর্যের দূরত্বের কাছাকাছি হবে।

নীচে এর হিসাব দেওয়া হল:

একটি সাধারণ A4 কাগজের বেধ হল \(0.1mm=0.1×10^{-6}km=x\) (ধরি)।

1 বার ভাঁজে বেধ হবে \(2x\)

2 বার ভাঁজে বেধ হবে \(2×x=2^2x\)

3 বার ভাঁজে বেধ হবে \(2×2^2x=2^3x\)

4 বার ভাঁজে বেধ হবে \(2×2^3x=2^4x\)

একইভাবে বলা যায়,

50 বার ভাঁজে বেধ হবে \(2×2^{49}x=2^{50}x\)

সুতরাং,

\(2^{50}x=2^{50}×0.1×10^{-6}km\)=1.126×108 km।

এখন, সূর্য থেকে পৃথিবীর দূরত্ব 14 কোটি 90 লক্ষ কিমি= 1.49×108 km। সংখ্যাটা পুরোপুরি  মিলবে না তবে ঘাত একই আছে। আসন্নমানে এই দুটি মান প্রায় সমান ধরা যেতে পারে।

এবারে অনেকে মনে ভাবনা আসতেই পারে যে কী সব পাগলের প্রলাপ। এত বড় কাগজ কখনও তৈরি সম্ভব নয়। হ্যাঁ- সম্ভব নয়। সমগ্র ভাবনাটা কাল্পনিক। এই কল্পনায় ভাবা বিষয় বাস্তবিকতার ভিত্তি তৈরি করে দেয়।

সেজন্য আইনস্টাইন বলেছিলেন,  “Imagination is more important than knowledge. For knowledge is limited to all we now know and understand, while imagination embraces the entire world, and all there ever will be to know and understand.'

ফেসবুকে সঙ্গে থাকতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *