নতুন জগতের ছবি পাঠানো শুরু করে দিল TESS

   গত 18ই এপ্রিল Transiting Exoplanet Survey Satellite সংক্ষেপে TESS মহাকাশে পারি দেয় কেপলার টেলিস্কোপের পরিপূরক হিসেবে। ইতিমধ্যে এটি নিজের তোলা মূল্যবান ছবিগুলি আমাদের পাঠিয়ে দিচ্ছে; অজানাকে জানার জন্য।

 এটিকে 30 মিনিটের জন্য চালু করা হয়েছিল। এগুলি দিয়ে এটি অনেকগুলি ছবি তোলে। ছবিগুলিতে Capricornus (মকর) থেকে Pictor নক্ষত্রপুঞ্জ রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে Magellanic cloud.

TESS যে ছবিগুলি তুলেছে সেগুলি মূলত দক্ষিণ আকাশের; যেখানে এমন তারা রয়েছে যেগুলি Transiting planet রেয়েছে।

Transiting planet গুলি তার নক্ষত্রের আলোকে পৃথিবীতে আসতে কিছুটা বাঁধা দেয়। ফলে তারাগুলির উজ্জ্বলতা কিছুটা কমে যায় এবং এতেই গ্রহগুলির উপস্থিতি বোঝা যায়। এমনকি গ্রহের আকার, বায়ুমন্ডলের গঠন সম্পর্কেও বলা সম্ভব।

এই TESS দুই বছরে মহাকাশের 26 টি অংশে খোঁজ চালাবে। প্রতিটি অংশের জন্য 27 দিন বরাদ্দ থাকবে। এইভাবে TESS আকাশের 85 শতাংশ জায়গা পর্যবেক্ষণ করবে। প্রথম বছর উপগ্রহটি 13 টি অংশে লক্ষ্য রাখবে। এইগুলির প্রত্যেকটিই দক্ষিণ আকাশের। পরের বছর এটি উত্তর গোলার্ধে নজর রাখবে।

এরপর থেকে 13.7 দিন পরপর TESS ছবি পাঠাতে থাকবে। ওই মুহুর্তে TESS ও পৃথিবীর দূরত্ব সর্বনিম্ন থাকবে। নাসার Deep Space Network তথ্যগুলি সংগ্রহ করবে এবং MIT-তে তার প্রাথমিক মূল্যায়ন ও বিশ্লেষণ করা হবে। তারপরে নাসার Ames Research Centre-এ তার পূর্ণাঙ্গ অধ্যয়ন হবে।

কেপলার মহাকাশযানের উত্তরসূরি TESS বহির্বিশ্বের গ্রহ খোঁজার কাজকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। এর বিশেষত্ব হল 30 থাকে 300 আলোকবর্ষের মধ্যে অবস্থিত গ্রহগুলির 30 থেকে 100 গুন ঔজ্জ্বল্যের ছবি পাওয়া যাবে। যার ফলে আরও নিখুতভাবে বর্ণালি-বিশ্লেষণ পদ্ধতির মাধ্যমে গ্রহগুলির সম্পর্কে জানা যাবে।

Credit: NASA/MIT/TESS     ডাউনলোড

Credit: NASA/MIT/TESS    ডাউনলোড

ফেসবুকে সঙ্গে থাকুন

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *